২২শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ।৮ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ।শনিবার

দুই জেলার তিন প্রতারাক ঈদগাঁও থানা পুলিশের জালে।

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

মোঃ কাউছার ঊদ্দীন শরীফ, কক্সবাজার।

 

কক্সবাজারের ঈদগাঁও উপজেলায় থানা পুলিশের অভিযানে প্রতারক চক্রের ৩ সদস্য কে আটক করা হয়েছে।

 

বৃহস্পতিবার (২৩ সেপ্টেম্বর )দুপুর ১টা ৩০ মিনিটের সময় ঈদগাঁও বাস ষ্টেশন ইসলামী ব্যাংক চত্তরে এ অভিযান চালানো হয়।

 

জানা যায়, পুলিশ সুপারের ঘোষিত চলমান বিশেষ অভিযান সফল করার উদ্দেশ্যে ঈদগাঁও থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুল হালিমের নেতৃত্ত্বে এসআই-মোঃ রেজাউল করিম, এস আই- মোহাম্মদ শামীম আল মামুন, এএসআই-রাসেল কাজী সঙ্গীয় ফোর্স সহ ঈদগাঁও থানাধীন ঈদগাঁও বাসষ্ট্যান্ডের বর্নিত এলাকা হতে জনগনের সহায়তায় ১। মোঃ খোকন (৫০), পিতা মৃত লাল মিয়া ফকির, সাং-বহেরাতলা, থানা-শিবচর, জেলা-মাদারীপুর, ২। মোঃ ফারুক (৪৮), পিতা মৃত মফিজ উদ্দিন মাতাব্বর, সাং-পূর্ব কাকুরা, শিরুয়াইল ইউপি, থানা- শিবচর, জেলা-মাদারীপুর, ৩। মোঃ সেলিম (৪৩), পিতা মৃত ইসমাইল, সাং-গোয়ালবাড়ী, শিমুলিয়া ইউপি, থানা-সাভার, জেলা-ঢাকা ০৩(তিন)জন প্রতারক চক্রের সদস্যকে আটক করা হয়। উক্ত প্রতারক চক্রের সদস্যগন গত ২২/০৯/২০২১ তারিখ একজন ব্যাংকের গ্রাহক ইসলামী ব্যাংক ঈদগাঁও শাখা হইতে ০১(এক)লক্ষ টাকা উত্তোলন করিয়া বাহিরে আসার সাথে সাথে পূর্ব হইতে উৎপেতে থাকা প্রতারক চক্রের সদস্যগন উক্ত গ্রাহককে বিভিন্ন প্রকার ছলচাতুরীর মাধ্যমে উক্ত টাকা আত্নসাৎ করিয়া পালিয়ে যায়। ২৩/০৯/২০২১ তারিখ উক্ত প্রতারক চক্র পূনরায় ঈদগাঁও বাসষ্ট্যান্ড এলাকায় ঘুরাফেড়া কালে ঈদগাও বাস স্টেশনে ফরিদুল আলমের মালিকানাধীন আলাদিনের চেরাগ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের সিসিটিভি ক্যামেরার মাধ্যমে এ প্রতারক চক্রের সদস্যদের জনতার সহযোগিতায় পুলিশ গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়। গ্রাহকের আত্নসাৎকৃত টাকা উদ্ধার করা হয়। প্রতারক চক্রের প্রতারনাকাজে ব্যবহৃত একটি প্রাইভেটকার আটক ও জব্দ করা হয়। উক্ত বিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন বলে জানান ঈদগাঁও থানার অফিসার্স ইনচার্জ।

 

উল্লেখ্য যে ধৃত আসামী মোঃ খোকন (৫০) এর বিরুদ্ধে (১) মুন্সিগঞ্জ সদর থানার মামলা নং-৩১/২১২ তাং-১৪/০৪/২০২১ ইং ধারা-৩৮০ দঃ বিঃ (২) সরিয়তপুর জাজিরা থানার মামলা নং-০৯/২৪ তাং-২০/০২/২০২০ ইং ধারা-৪০৬/৪২০/৩৭৯ দঃ বিঃ (৩) ডিএমপি এর তেজগাও শিল্পাঞ্চল থানার মামলা নং-৩৬/৩৬ তাং-২৭/০১/২০২০ ইং ধারা-৪২০/৩৭৯/৪১১ দঃ বিঃ, ২নং আসামী মোঃ ফারুক মিয়া (৪৮) এর বিরুদ্ধে মুন্সিগঞ্জ সদর থানার মামলা নং-৩১/২১২ তাং-১৪/০৪/২০২১ ইং ধারা-৩৮০ দঃ বিঃ, (২) কুষ্টিয়া সদর থানার মামলা নং-২৭ তাং-১৪/০৮/২০১৭ ইং ধারা-৩৯৪দঃ বিঃ, (৩) কুমিল্লা দাউদকান্দি থানার মামলা নং-৪২ তাং-৩০/০৮/২০১৩ ইং ধারা-৩৭৪৮) এর বিরুদ্ধে (১) মুন্সিগঞ্জ সদর থানার মামলা নং-৩১/২১২ তাং-১৪/০৪/২০২১ ইং ধারা-৩৮০ দঃ বিঃ, (২) কুষ্টিয়া সদর থানার মামলা নং-২৭ তাং-১৪/০৮/২০১৭ ইং ধারা-৩৯৪দঃ বিঃ, (৩) কুমিল্লা দাউদকান্দি থানার মামলা নং-৪২ তাং-৩০/০৮/২০১৩ ইং ধারা-৩৭৯ দঃ বিঃ, (৪) পাবনা ইশ্বরদী থানার মামলা নং-১৬ তাং-১৩/১২/২০০৬ ইং ধারা-৩৯২ দঃ বিঃ বিজ্ঞ আদালতে বিচারাধীন আছে।

এই পোস্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে সেয়ার করুন

এই বিভাগের আরও খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ঝিনাইদহের কোটচাঁদপুর নির্ঘুম রাত কাটছে এলাকাবাসীর

কোটচাঁদপুর (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধি : ১ মাসে ১৬ টি ছাগল চুরি
পর থেকে চোর আতঙ্কে নির্ঘুম রাত কাটচ্ছে গ্রামের ছাগল মালিকরা। মইদুল ইসলামের ২ টি ছাগল চুরি হয়েছে। এর ধারাবাহিক এই চুরির ঘটনার পর থেকে গ্রামজুড়ে চোর আতঙ্ক
বিরাজ করছে।
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, কোটচাঁদপুর উপজেলার পাঁচলিয়া গ্রাম থেকে গত ১মাসে ৯ বাড়ি থেকে ১৬ টি ছাগল চুরির ঘটনা ঘটেছে। পল্লী চিকিৎসক আব্দুল আলিমের ১টি, তহিদুল ইসলামের ১টি, আশরাফুল ইসলামের ৩টি, সাইদুল ইসলামের
১টি, জহির হোসেনের ১টি, দুরুদ মন্ডলের ১টি, তসলেম উদ্দিনের ২টি, ও আবু কালামের ২টি রয়েছে। চোরেরা ছাগল মেরে রেখে যায় আরও ১টি।
মইদুল ইসলাম বলেন, গত ১০ বছর ধরে আমি পঙ্গু হয়ে ঘরে পড়ে আছি। মাঠে অল্প একটু জমি আছে, তা থেকে খাবার ধানটা কোন রকম আসে। বাজার আর অন্যান ব্যয়ভার চলতো
আমার ছাগল বিক্রি করে। ছাগল ২টি পেয়েছিলাম আমি ছাগল পোষানি থেকে। তাও নিয়ে গেল চোরেরা। তিনি বলেন,
৩ছেলে মেয়ে আর স্ত্রী নিয়ে আমার সংসার। সংসারের আয় করি আমি একাই। এদিকে একের পর এক ছাগল চুরির ঘটনায় নির্ঘুম রাত কাটছে ওই গ্রামের ছাগল মালিক লালন খন্দকার ও মমিনুর রহমান। তারা বলেন, আমরা দীর্ঘদিন ধরে
ছাগল পালন করে আসছি। এমন সমস্যা হয়নি কোনদিন
প্রায় দিন না ঘুমিয়ে রাত কাটছে এলাকাবাসীর। এ ব্যাপারে দোড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবদুল জলিল বিশ্বাস বলেন, চুরির ঘটনা ঘটেছে আমি জানি। বিষয়টি উপজেলা আইন শৃঙ্খলা সভায় তোলা হয়েছে। তবে আজ পর্যন্ত কোনো
ব্যবস্থা নেয়া হয়নি। কোটচাঁদপুরের লক্ষ্মীপুর পুলিশ ফাঁড়ির উপপরিদর্শক ( এসআই) মিজানুর রহমান বলেন, চায়ের দোকানে গল্প শুনেছি ১/২ টা ছাগল চুরি হয়েছে। এই ব্যাপারে আজ পর্যন্ত কেউ কোন অভিযোগ ও করেনি

ঝিনাইদহের৷কোটচাদপুর ১ মাসে ১৬ টি ছাগল চুরি