২৩শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ।৮ই শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ।মঙ্গলবার

চাটখিলে মুক্তিযোদ্ধা ও সাবেক ডিআইজি গোলাম কিবরিয়া ভূঁইয়ার সোনাইমুড়ী অন্ধকল্যান সমিতি ও বিভিন্ন শিক্ষা-প্রতিষ্ঠানে সভায় যোগদান।

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

মনির হোসেন (স্টাফ রিপোর্টোর):

 

নোয়াখালীর সোনাইমুড়ী অন্ধ কল্যাণ সমিতির উদ্যোগে আজ ৪ঠা নভেম্বর বৃহষ্পতি বার সকাল ১০টায় সোনাইমুড়ি আই হসপিটাল অডিটোরিয়ামে, অন্ধ কল্যাণ সমিতির সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা গোলাম মোস্তফা ভূঁইয়ার সভাপতিত্বে, সোনাইমুড়ী উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি ও সমিতির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুর রহমান ভিপি বাহারের সঞ্চালনায় মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়।

 

সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন

বাংলাদেশ ডায়াবেটিক সমিতি (বারডেম) এর প্রকল্প পরিচালক এবং বাংলাদেশ পুলিশের সাবেক ডিআইজি দৈনিক বাংলাদেশ সমাচার পত্রিকা উপদেষ্টা সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা গোলাম কিবরিয়া ভূঁইয়ার।

 

সভার প্রধান অতিথি বীর মুক্তিযোদ্ধা বাংলাদেশ ডায়াবেটিক সমিতি (বারডেম) এর প্রকল্প পরিচালক এবং বাংলাদেশ পুলিশ বিভাগের সাবেক ডিআইজি, দৈনিক বাংলাদেশ সমাচার পত্রিকার উপদেষ্ঠা সম্পাদক, বিশিষ্ট সমাজ সেবক গোলাম কিবরিয়া ভূঁইয়া বলেন, আল্লাহর রহমত ছাড়া কোন কিছুই সম্ভব নয়! ডায়াবেটিস থাকলে মানবদেহে অনেক রোগ সৃষ্টি হয় ।

সবার আগে ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ করা জরুরি, ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ করতে পারলে অনেক রোগ থেকে সুস্থ থাকা সম্ভব। ডায়াবেটিস রোগীর সঠিকভাবে চিকিৎসার জন্য সামাজিক ভাবে সচেতনতা গড়ে তুলতে হবে।

 

আলোচনা সভায় উপস্থিত ছিলেন সোনাইমুড়ী পৌরসভা মেয়র ভিপি নুরুল হক চৌধুরী, উপজেলা সহকারী সমাজসেবা অফিসার আবুল বাশার, হসপিটালের উপ-পরিচালক উত্তম রতন, সোনাইমুড়ী সরকারি কলেজের প্রভাষক সেতারা বেগম, জেলা সাংবাদিক মোঃ বেল্লাল হোসেন নাঈম, সাংবাদিক মোঃ ফরিদ খান, সমিতির কোষাধক্ষ্য আব্দুস সাত্তার, প্রচার সম্পাদক হোসেন মোল্লা প্রমূখ।

 

উক্ত সভায় গোলাম মোস্তফা ভূঁইয়া প্রধান অতিথিকে উদ্দেশ্য করে বলেন আপনার সর্বোত্তম সাহায্য পেলে, আই হসপিটালের পক্ষে আরো বেশি মানুষের সেবা প্রদান করা সম্ভব।

 

পরবর্তীতে গোলাম কিবরিয়া ভূইয়া চাটখিল উপজেলার মোহাম্মদ পুর ইউনিয়নের নোয়াপাড়া জামিয়া ফারুকীয়া মাদ্রাসার পরিচালনা কমিটির সভায় যোগদান করেন।

উক্ত সভায় সভাপতিত্ব করেন বীর মুক্তিযোদ্ধা জনাব গোলাম কিবরিয়া ভূঁইয়া। সভায় কমিটির সকল সদস্যদের উপস্থিতিতে মাদ্রাসার সকল আয়- ব্যয়ের হিসাব নেওয়া হয়। দায়িত্ব পালনে অবহেলা করায় মাদ্রাসার স্বার্থে মোহতামিম কে বাদ দেওয়া হয় এবং নতুন পুরাতনদের সমন্বয়ে মাদ্রাসার গর্ভনিং বডির নতুন কমিটি গঠন করা হয়।

সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা গোলাম কিবরিয়া ভূঁইয়া, সহ-সভাপতি মাষ্টার কামরুল আলম, সহ-সভাপতি বিল্লাল চৌধুরী এবং মাস্টার জহিরুল ইসলামকে সাধারণ সম্পাদক করে নতুন কমিটি গঠন করা হয়।

 

পরবর্তীতে মোহাম্মদ পুর ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডে বাবুপুর হাফিজিয়া, এতিমখানা ও নুরানী মাদ্রাসার অফিস কক্ষে মাদ্রাসার পরিচালনা কমিটির বৈঠক হয়। উক্ত অনুষ্ঠানে বিশিষ্ট সমাজ সেবক গোলাম কিবরিয়া ভূঁইয়ার সভাপতিত্বে বিল্লাল চৌধুরীর সঞ্চালনায় মাদ্রাসার পরিচালনা পর্ষদের সকল সদস্য উপস্থিত ছিল।সভায় সর্বসম্মতিক্রমে মাদ্রাসার পুকুরের পাড়ে গার্ড নির্মাণ ও মাদ্রাসার ছাত্র-শিক্ষকদের জন্য টয়লেট নির্মাণের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে।

 

বিকালে অত্র ইউনিয়নের কামালপুর মোঃ হাশেম উচ্চ বিদ্যালয়ের গোলাম কিবরিয়া ভূঁইয়ার সভাপতিত্বে বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের সঙ্গে বৈঠকে করেন।তিনি বিদ্যালয়ের ও ছাত্র-ছাত্রীদের সার্বিক খোঁজ খবর নেন। গোলাম কিবরিয়া ভূঁইয়া বিদ্যায়ের এবং ছাত্র-ছাত্রীদের পড়া-লেখার মান উন্নয়নের জন্য দিক নির্দেশনা প্রদান করেন।

ডি আই জি গোলাম কিবরিয়া ভূইয়া আলোকিত মানুষ গড়ার লক্ষ্যে স্কুল মাদ্রাসায় আর্থিক সহায়তা প্রদান করে শিক্ষার মানোন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছেন। ওনার মহতি উদ্যোগ কে স্বাগত জানিয়েছেন এলাকায় সচেতন অভিভাবক বৃন্দ।

মোহাম্মদ পুর ইউনিয়নের সাধারণ জনগণের কাছে সাদা মনের মানুষ হিসেবে পরিচিত লাভ করেছেন কিবরিয়া ভূইয়া।

এই পোস্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে সেয়ার করুন

এই বিভাগের আরও খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

অরবিন্দ কুমার মণ্ডল, কয়রা, খুলনাঃ

খুলনার কয়রায় জনপ্রতিনিধিদের অংশগ্রহণে নিরাপদ খাদ্য বিষয়ক সচেতনতামূলক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়েছে।
১৬ জুলাই মঙ্গলবার দুপুর ১২ টায় উপজেলা পরিষদের সম্মেলন কক্ষে বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষ খুলনা জেলার আয়োজনে ও কয়রা উপজেলা প্রশাসনের সহযোগীতায় এ সচেতনতামূলক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার রুলী বিশ্বাসের সভাপতিত্বে সচেতনতামূলক সেমিনারে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্হিত ছিলেন, উপজেলা চেয়ারম্যান জি এম মোহসিন রেজা। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্হিত ছিলেন, উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নাসিমা আলম।
এসময় আরও উপস্হিত ছিলেন, কয়রা সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান এস এম বাহারুল ইসলাম, উত্তর বেদকাশী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সরদার নুরুল ইসলাম কোম্পানি, দক্ষিণ বেদকাশী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আছের আলী মোড়ল, মহারাজপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আবদুল্লাহ আল মাহমুদ, মহেশ্বরীপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শাহনেওয়াজ শিকারী, বাঙ্গালী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুস সামাদ গাজী, আমাদী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জিয়াউর রহমান জুয়েল সহ সাতটি ইউনিয়ন পরিষদের সদস্যবৃন্দ।

নিরাপদ খাদ্যের মূল প্রবন্ধ উপস্হাপন করেন খুলনা জেলা নিরাপদ খাদ্য অফিসার মোঃ মোকলেছুর রহমান।

কয়রায় নিরাপদ খাদ্য বিষয়ক সচেতনতামূলক সেমিনার অনুষ্ঠিত।

মুক্তাগাছা প্রতিনিধি:

মুক্তাগাছায় চাচা শ্বশুরের দায়ের কোপে ভাতিজা বউ শিউলী আক্তার খুন হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে শনিবার সকাল ৭টার দিকে উপজেলার বাঁশাটি ইউনিয়নের গোয়ারী উত্তর পাড়া গ্রামে।
প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ সূত্রে জানাযায়, উপজেলার গোয়ারী উত্তর পাড়া গ্রামের বাসিন্দা সিএনজি চালক শরিফুল ইসলামের স্ত্রী শিউলী আক্তার (৩০) স্বপরিবারে ঘুমাচ্ছিল। এ সময় তার চাচা শ্বশুর মৃত নেওয়াজ আলীর পুত্র সোলায়মান মিয়া তাদেরকে ডাকা ডাকি করে ঘর থেকে বের হতে বলে। দরজা খুলে শরিফুল ও তার স্ত্রী শিউলী ঘর থেকে বের হলে সোলায়মান তাদেরকে অকথ্য ভাষায় গালিগালজ করে। এক পর্যায়ে সোলায়মানের হাতে থাকা দা দিয়ে এলোপাতারি কোপাতে শুরু করে। সোলায়মান দা’ দিয়ে শিউলীর ঘাড়ে কোপ দিলে শিউলী ঘটনাস্থলেই মারা যায়। পরে সোলায়মান দা নিয়ে শরিফুলকে ধাওয়া দিলে শরিফ প্রাণ বাঁচাতে পুকুরে লাফ দিয়ে প্রণে বাঁচায়। পরে প্রতিবেশীরা এসে তাকে উদ্ধার করে।
নিহত শিউলী একই উপজেলার মুজাটি গ্রামের মৃত হামেদ আলীর মেয়ে। গত ১২ বছর আগে তাদের বিয়ে হয়। শিউলর ৫ মাসের মেয়ে শিশুসহ ৩ কন্যা সন্তান রয়েছে।
উল্লেখ্য গত শুক্রবার বিকেলে শিউলীর ৬ বছরের মেয়ে লামিয়া এর সাথে সোলায়মানের পুত্রের তুচ্ছ ঘটনা নিয়ে ঝগড়া হয়। সেই ঝগড়ার জেরেই সকালে নিহতের বাড়িতে এসে তাদের ঘুম থেকে ডেকে এ খুনের ঘটনা ঘটান।
ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে মুক্তাগাছা থানার অফিসার ইনচার্জ (তদন্ত) জহিরুল ইসলাম মুন্না জানান, শনিবার সকালে উপজেলার গোয়ারী উত্তর গ্রামে হত্যার ঘটনা ঘটে। থানা পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজে পাঠায়। মামলার প্রস্তুতি চলছে। এঘটনায় এখন পর্যন্ত কাউকে গ্রেপ্তার করা যায়নি।

মুক্তাগাছায় চাচা শ্বশুড়ের দায়ের কোপে ৩ সন্তানের জননী খুন।