২০শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ।৬ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ।বৃহস্পতিবার

উন্নয়নের ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখতে চান আকবর আলী।

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

 

সোহেল চৌধুরী রানা, সাপাহার (নওগাঁ) প্রতিনিধিঃ

আসন্ন ইউপি নির্বাচনে সাপাহার সদর ইউনিয়ন পরিষদে আবারও চেয়ারম্যান পদে দলীয় মনোনয়ন পেতে চান ইউপি চেয়ারম্যান আকবর আলী। তিনি গত নির্বাচনে বাংলাদেশ অাওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী হিসাবে নৌকা প্রতীক নিয়ে ভোট যুদ্ধে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। ইতিমধ্যে তিনি আবারও চেয়ারম্যান পদে দলীয় মনোনয়ন পাবার লক্ষে প্রতিটি ওয়ার্ড, পাড়া-মহল্লায় ঘুরে ভোটারদের খোঁজ খবর নিচ্ছেন। দোয়া, সমর্থন ও সহযোগিতা কামনা করে তিনি মতবিনিময় এবং উঠান বৈঠকও করছেন বলে জানাগেছে।

 

তিনি বলেন, আমি জন্মসূত্রে আওয়ামী লীগ পরিবারের সন্তান। ১৯৯২ হতে ২০০৪ সাল পর্যন্ত সাপাহার সদর ইউনিয়নে ওয়ার্ড ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সদস্য ছিলাম। ২০০৫ হতে ২০০৮ সাল পর্যন্ত উপজেলার কৃষক লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক এবং ২০০৯ সাল হতে ২০২১ সাল পর্যন্ত উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক হিসাবে সাংগঠনিক দায়িত্ব পালন করেছি। ২০২১ সালে উপজেলা আওয়ামী লীগের নব গঠিত কমিটিতে সহ-সভাপতি নির্বাচিত হয়ে দলীয় কর্মকান্ড ও সকল কর্মসূচী সততা ও নিষ্ঠার সাথে পালন করছি।

 

তিনি আরও বলেন, গত নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী হিসাবে নৌকা প্রতীক নিয়ে জনগনের ভোটে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছি। একজন দলীয় চেয়ারম্যান হিসাবে দল ও সরকারের ভাবমূর্তি অক্ষুন্ন রেখে এলাকায় সার্বিক উন্নয়নের ব্যপারে স্থানীয় সংসদ সদস্য ও বর্তমান খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার মহদোয়ের দিক নির্দেশনায় কাজ করে আসছি। যার ফলশ্রুতিতে শের-ই-বাংলা এ.কে ফজলুল হক গবেষণা পরিষদ কর্তৃক প্রদত্ত শের-ই-বাংলা এ.কে ফজলুল হক স্বর্ণ পদক-২০১৬, মানবাধিকার শান্তি পদক-২০১৭, মানবাধিকার পিচ এওয়ার্ড-২০১৭, হিউম্যান রাইটস্ কালাচারাল সোসাইটি কর্তৃক প্রদত্ত শের-ই-বাংলা এ.কে ফজলুল হক সম্মননা পদক-২০১৭, বঙ্গবুন্ধ কালচারাল ফাউন্ডেশন কর্তৃক প্রদত্ত বঙ্গবন্ধু সম্মননা পদক-২০১৭, জাতীয় কবি সম্মননা পদক-২০১৮, গ্রাম আদালত পারফরম্যান্স অ্যাওয়ার্ড-২০১৮ (নওগাঁ জেলা ও সাপাহার উপজেলা শ্রেষ্ঠ), জার্নালিস্ট সোসাইটি ফর হিউম্যান রাইটস্ কর্তৃক প্রদত্ত মানবাধিকার শান্তি পদক-২০১৮(শ্রেষ্ঠ ইউপি চেয়ারম্যান হিসাবে), মানবাধিকার জোট কর্তৃক প্রদত্ত বৈশাখী সম্মাননা-১৪২৫(২০১৯), আঞ্চলিক ভাষা ও বাঙ্গালী সংস্কৃতি পরিষদ কর্তৃক প্রদত্ত একুশে স্মৃতি গোল্ডেল এ্যাওয়ার্ড-২০১৯(নওগাঁ জেলার শ্রেষ্ঠ ইউপি চেয়ারম্যান হিসাবে), শের-ই-বাংলা এ.কে ফজলুল হক গবেষণা পরিষদ কর্তৃক প্রদত্ত শের-ই-বাংলা এ.কে ফজলুল হক স্বর্ণ পদক-২০২০, গ্রাম আদালত পারফরম্যান্স এ সমগ্র বাংলাদেশে শ্রেষ্ঠ-২০২০ এবং বাংলাদেশ ইউনিয়ন পরিষদ ফোরাম হতে “কোভিড-১৯” মোকাবেলায় সফল চেয়ারম্যান হিসাবে সম্মাননা সনদ প্রাপ্তি সহ বিভিন্ন সামাজিক কাজের স্বীকৃতি স্বরূপ পুরস্কার ও সম্মাননা লাভ করেছি। এরই ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখতে আবারও আসন্ন ইউপি নির্বাচনে ১ নং সাপাহার ইউনিয়ন পরিষদে চেয়ারম্যান পদে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশা করেন মো. আকবর আলী।

এই পোস্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে সেয়ার করুন

এই বিভাগের আরও খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ঝিনাইদহের কোটচাঁদপুর নির্ঘুম রাত কাটছে এলাকাবাসীর

কোটচাঁদপুর (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধি : ১ মাসে ১৬ টি ছাগল চুরি
পর থেকে চোর আতঙ্কে নির্ঘুম রাত কাটচ্ছে গ্রামের ছাগল মালিকরা। মইদুল ইসলামের ২ টি ছাগল চুরি হয়েছে। এর ধারাবাহিক এই চুরির ঘটনার পর থেকে গ্রামজুড়ে চোর আতঙ্ক
বিরাজ করছে।
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, কোটচাঁদপুর উপজেলার পাঁচলিয়া গ্রাম থেকে গত ১মাসে ৯ বাড়ি থেকে ১৬ টি ছাগল চুরির ঘটনা ঘটেছে। পল্লী চিকিৎসক আব্দুল আলিমের ১টি, তহিদুল ইসলামের ১টি, আশরাফুল ইসলামের ৩টি, সাইদুল ইসলামের
১টি, জহির হোসেনের ১টি, দুরুদ মন্ডলের ১টি, তসলেম উদ্দিনের ২টি, ও আবু কালামের ২টি রয়েছে। চোরেরা ছাগল মেরে রেখে যায় আরও ১টি।
মইদুল ইসলাম বলেন, গত ১০ বছর ধরে আমি পঙ্গু হয়ে ঘরে পড়ে আছি। মাঠে অল্প একটু জমি আছে, তা থেকে খাবার ধানটা কোন রকম আসে। বাজার আর অন্যান ব্যয়ভার চলতো
আমার ছাগল বিক্রি করে। ছাগল ২টি পেয়েছিলাম আমি ছাগল পোষানি থেকে। তাও নিয়ে গেল চোরেরা। তিনি বলেন,
৩ছেলে মেয়ে আর স্ত্রী নিয়ে আমার সংসার। সংসারের আয় করি আমি একাই। এদিকে একের পর এক ছাগল চুরির ঘটনায় নির্ঘুম রাত কাটছে ওই গ্রামের ছাগল মালিক লালন খন্দকার ও মমিনুর রহমান। তারা বলেন, আমরা দীর্ঘদিন ধরে
ছাগল পালন করে আসছি। এমন সমস্যা হয়নি কোনদিন
প্রায় দিন না ঘুমিয়ে রাত কাটছে এলাকাবাসীর। এ ব্যাপারে দোড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবদুল জলিল বিশ্বাস বলেন, চুরির ঘটনা ঘটেছে আমি জানি। বিষয়টি উপজেলা আইন শৃঙ্খলা সভায় তোলা হয়েছে। তবে আজ পর্যন্ত কোনো
ব্যবস্থা নেয়া হয়নি। কোটচাঁদপুরের লক্ষ্মীপুর পুলিশ ফাঁড়ির উপপরিদর্শক ( এসআই) মিজানুর রহমান বলেন, চায়ের দোকানে গল্প শুনেছি ১/২ টা ছাগল চুরি হয়েছে। এই ব্যাপারে আজ পর্যন্ত কেউ কোন অভিযোগ ও করেনি

ঝিনাইদহের৷কোটচাদপুর ১ মাসে ১৬ টি ছাগল চুরি